Dak Diye Jai (DDJ), a non-government, non profitable development organization, which was established in December 10, 1982 at the village Char Baleswar of Balipara Union under Zianagar upazila of Pirojpur district. Balipara Union is located on the bank of the river Baleswar and the river Katcha flows by the eastern side of the Union. The Union is approximately 350 km off from Dhaka and nearer to Sundarbans. In early 1980, the only communication was motor launch and the major internal communication used to be the country boats. Majority of the people of the Union were the farmers, fishermen, boatmen, Bawalis and resource extractors from the Sundarbans forest. From the union the organization started its journey through implementation of awareness-building activities among the rural poor aiming to their holistic development. In November 29, 1988, a devastating cyclone hit on the southern region of Bangladesh. The people of Balipara Union faced massive devastation because of the cyclone. On this disastrous background, the organization conducted vast Relief and Rehabilitation activities with the financial assistance of Overseas Development and Administration (ODA) through Center for Development Services (CDS). Each and every Committee Members as well as Volunteers of the organization worked restlessly to implement Relief and Rehabilitation activities and made the program a great success and bring back normalcy in the life of the people.  As a result, the organization came closer to the poor people. DDJ initiated Maternal, Child Health and Family Planning project in 1989 with financial and technical support of Bangladesh Population and Health Consortium (BPHC) through Center for Development Services (CDS).  The organization successfully implemented the project in different titles and phases with the direct financial and technical support of BPHC from 1992 to 2004. As recognition of success in implementation of Maternal, Child Health and Family Planning project, Dak Diye Jai was awarded National Prize and Certificate by the Ministry of Health and Family Welfare of Bangladesh government for consecutive two times in Barisal division for the years of 1989-1999 and 1999-2000. The organization started implementing Water and Sanitation project in 1990 with the financial and technical cooperation and support of NGO Forum for DWSS. The organization started implementing Rural Micro Credit program in a greater extent in 1994 with the funding support of Palli Karma-Shahayak Foundation (PKSF) for the socio-economic development of the rural poor and since then the forward journey of the organization towards socio-economic development of poor people is continuing.

‘ডাক দিয়ে যাই’ সংস্থা বাংলাদেশের সর্ব দক্ষিণের পিরোজপুর জেলায় ১৯৮২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এটি একটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা। সংস্থা পিরোজপুর সদর উপজেলায় গ্রামীণ দরিদ্র জনগোষ্ঠির মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধিমূলক কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে যাত্রা শুরু করে। ১৯৮৮ সালে বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলে ধ্বংসাত্মক ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানে। ঘূর্ণিঝড়ে পিরোজপুর জেলার জিয়ানগর উপজেলার বালিপাড়া ইউনিয়ন ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এই দুর্যোগের প্রেক্ষাপটে সেন্টার ফর ডেভেলপমেন্ট সার্ভিসেস (সিডিএস) এর মাধ্যমে ওভারসিস ডেভেলপমেন্ট এন্ড এডমিনিস্ট্রেশন (ওডিএ) এর আর্থিক সহায়তায় সংস্থা বালিপাড়া ইউনিয়নে অত্যন্ত সফলতার সাথে ব্যাপকভাবে ত্রাণ ও পুর্নবাসন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে, যা সংস্থার প্রতি দরিদ্র জনগোষ্ঠির আস্থা সৃষ্টির ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। সংস্থা ১৯৮৯ সালে সিডিএস এর মাধ্যমে বাংলাদেশ পপুলেশন এন্ড হেলথ্ কনসোটিয়াম (বিপিএইচসি)-র আর্থিক ও কারিগরি সহায়তায় মা, শিশু-স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা প্রকল্প শুরু করে এবং ১৯৯২ সাল থেকে ডিসেম্বর ২০০৪ সাল পর্যন্ত সময়ে সরাসরি বিপিএইচসি-র আর্থিক ও কারিগরি সহায়তায় অত্যন্ত সফলতার সাথে বিভিন্ন শিরোনামে উক্ত প্রকল্প অব্যাহত রাখে। সংস্থা ১৯৯০ সালে এনজিও ফোরাম ফর ড্রিংকিং ওয়াটার সাপ্লাই এন্ড স্যানিটেশন এর আর্থিক সহায়তায় পানি ও পয়ঃ নিষ্কাশন প্রকল্প প্রকল্প শুরু করে। বৃহত্তর পরিসরে গ্রামীণ দরিদ্র জনগোষ্ঠির আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে সংস্থা ১৯৯৪ সাল থেকে পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউ-েশন (পিকেএসএফ) এর আর্থিক সহায়তায় গ্রামীণ ক্ষুদ্র ঋণ কার্যক্রম শুরু করে। সংস্থা মূলত ১৯৮৪ সালে স্যাপ বাংলাদেশ এর আর্থিক সহায়তায় বাস্তবায়িত জেলে উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণের মাধ্যমে দল গঠন, সঞ্চয় সংগ্রহ এবং ঋণদান কার্যক্রমের সূচনা করে। পরবর্তীতে সংস্থা দরিদ্র জনগোষ্ঠির সার্বিক উন্নয়নের লক্ষ্যে একের পর এক বিভিন্ন প্রকল্প ও কার্যক্রম গ্রহণ করে। এই প্রক্রিয়া বর্তমানেও অব্যাহত রয়েছে।